অবিবাহিত নারী-পুরুষকে একই সঙ্গে হোটেলে থাকার অনুমতি দিল সৌদি সরকার

এ বার থেকে অবিবাহিত নারী-পুরুষ একই সঙ্গে হোটেলে থাকতে পারবেন। পর্যটক টানতে রক্ষণশীলতার বেড়াজাল ভেঙে বিদেশিদের এমনই ছাড়পত্র দিল সৌদি সরকার। শুধু বিদেশি পর্যটকই নয়, সৌদি মহিলারাও এ বার থেকে হোটেলে একা থাকতে পারবেন। তবে সে ক্ষেত্রে হোটেলে চেক-ইনের জন্য তাঁদের প্রমাণপত্র দেখাতে হবে। তবে বিদেশি পর্যটকদের ক্ষেত্রে এ রকম কোনও প্রমাণপত্র লাগবে না বলেই জানিয়েছে দ্য সৌদি কমিশন ফর ট্যুরিজম অ্যান্ড ন্যাশনাল হেরিটেজ।

জ্বালানি তেল রফতানিই মূলত সৌদির অর্থনীতির প্রধান উত্স। কিন্তু এর পাশাপাশি এ বার পর্যটনের উপর জোর দেওয়া শুরু করেছে সৌদি সরকার। বিদেশি পর্যটক টানতে কয়েক দিন ৪৯টি দেশকে ছাড়পত্র দিয়েছে তারা। তাদের মূল লক্ষ্য ২০৩০-এর মধ্যে প্রতি বছর ১০ কোটি পর্যটক টানা। সেই লক্ষ্যে পৌঁছতেই অনেক বিষয়েই রক্ষণশীলতাকে দূরে সরিয়ে দিচ্ছে সৌদি সরকার। অবিবাহিত বিদেশি নারী-পুরুষের এক সঙ্গে হোটেলে থাকার বিষয়টিই তার একটা উদাহরণ।

শুধু সে দেশের মহিলাদের স্বাধীনতা দেওয়াই নয়, বিদেশি পর্যটকদের সে দেশে ভ্রমণের অনুমতি এবং তাঁদের পোশাকের ক্ষেত্রেও রাশ আলগা করেছেন কর্তৃপক্ষ। শরীর ঢাকা কালো পোশাক নয়, তবে পোশাক যেন শোভন হয়— এমনই নির্দেশিকা জারি করেছিল সৌদি সরকার। জরিমানাযোগ্য ১৯টি বিষয়ের একটি তালিকাও প্রকাশ করে তারা। অশোভন পোশাক পরা, জনসমক্ষে চুম্বন, থুতু ফেলা, অনুমতি ছাড়া কোনও ব্যক্তির ছবি ও ভিডিয়ো তোলা, প্রার্থনার সময় গান বাজানো— এমন বেশ কয়েকটি বিষয় তাদের সেই তালিকায় ছিল। দেশের নিয়মকানুন সম্পর্কে যাতে পর্যটক ও ভ্রমণার্থীরা ওয়াকিবহাল থাকেন সে জন্যই জরিমানাযোগ্য এমন নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে বলে সরকারি সূত্রে জানানো হয়েছিল।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *