রাস্তায় নেমে বউ-শাশুড়ির চুলোচুলি, দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে উপভোগ স্বামী-শ্বশুরের/ভিডিও:

দুই প্রজন্মে দু’জন সংসারের কর্ত্রী৷ দু’জনের ভূমিকা প্রায় একইরকম। শাশুড়ি ও বউমা – একে অন্যের প্রশংসায় মুখর, এমন বিশেষ শোনা যায় না। শাশুড়ি-বউমার সম্পর্ক ভাল হওয়া যেন অবিশ্বাস্য ব্যাপার। পরিবর্তে সাপে-নেউলে সম্পর্কই দস্তুর। বাড়িতে বাকযুদ্ধ হয়তো চলে, কিন্তু তা বলে হাতাহাতি-চুলোচুলি! তাও আবার রাস্তায় নেমে!
অবাক হলেও এমন ঘটনায় রীতিমতো সরগরম পশ্চিমবঙ্গের পশ্চিম মেদিনীপুরের ঘাটাল। তাঁদের মারামারিই আপাতত নেটদুনিয়ায় ভাইরাল।
ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে জানা যায়, পশ্চিম মেদিনীপুরের ঘাটালের বাসিন্দা ওই দুই গৃহবধূ। নিজে পছন্দ করেই পুত্রবধূকে ঘরে এনেছিলেন বৃদ্ধা। তাঁর দাবি, সম্বন্ধ দেখার সময় মেয়েকে বেশ ভালই লেগেছিল। সেই মতো বিয়েও দেনে ছেলের।

অভিযোগ, কিন্তু বউমা সংসারে পা রাখার পর থেকেই বদলে গিয়েছে ছবিটা। বউমার আসল চেহারাই যেন প্রকাশ পেয়েছে। সম্বন্ধের সময় এক্কেবারে লক্ষ্মীমন্ত মেয়েই নাকি বউমা হয়ে হয়ে উঠেছে ভয়ংকর। উঠতে বসতে শাশুড়ির সঙ্গে অশান্তি লেগেই থাকে। শাশুড়ির কোনও কিছুই তাঁর পছন্দ নয়।
শাশুড়ির মতোই গৃহবধূর অভিযোগের তালিকাও বেশ লম্বা। তাঁর দাবি, শাশুড়ি বিয়ের আগে নিজের মেয়ের মতো আচরণ করতেন৷ কিন্তু বিয়ের পর থেকে শাশুড়ির রূপ বদলে গিয়েছে। মেয়ের মতো ভাবা তো দূর, পুত্রবধূ হিসাবেও স্বীকার করতে চান না তিনি।

শাশুড়ির সঙ্গে ঝামেলা তাই সংসারে নিত্যনৈমিত্তিক বিষয়৷ তারই বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে সদ্য। একটি ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, বউমা এবং শাশুড়ি রাস্তায় শুয়ে মারামারি করছেন। রাস্তায় কখনও তারা চুলোচুলি করছেন, তো আবার কেউ কাউকে চড় মারছেন। আশেপাশেই রয়েছেন বাড়ির দুই কর্তা – বাবা এবং ছেলে।
এমন এক দৃশ্যে সচক্ষে দেখতে রাস্তায় ততক্ষণে ভিড়ও জমিয়ে ফেলেছেন প্রতিবেশীরা। কিন্তু শাশুড়ি-বউমার অশান্তিতে তাঁরা এতই বিরক্ত সকলে যে কেউই বাধা দিচ্ছেন না তাঁদের। পরিবর্তে মনের আনন্দে রাগ না মেটা পর্যন্তই চলে মারামারি, চুলোচুলি। শাশুড়ি-বউমার দ্বৈরথ নতুন কিছুই নয়, কিন্তু এমন মারামারি কেউ আগে দেখেছেন কি না, তা নিয়ে চলছে জোর আলোচনা।

ভিডিও:

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *