যৌ*ন নিপীড়নের দায়ে খুবি ছাত্র ব*হিষ্কার

যৌ*ন নিপীড়নের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রিন্টমেকিং ডিসিপ্লিনের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র পাপ্পু কুমার মন্ডলেকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আজীবন বহিষ্কার করা হয়েছে।
বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেটে এক জরুরি সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ ও প্রকাশনা বিভাগ জানিয়েছে,৩ জুলাই পাপ্পু কুমার মন্ডল বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এক ছাত্রীকে বিশ্ববিদ্যালয়ে যৌ*ন নি*পীড়ন করে বলে অভিযোগ ওঠে। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।
তদন্ত কমিটি ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় তাদের সুপারিশে সিন্ডিকেটের জরুরি সভায় প্রিন্টমেকিং ডিসিপ্লিনের শিক্ষার্থী পাপ্পু কুমার মন্ডলকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আজীবন ব*হিষ্কার করা।

প্রধানমন্ত্রীর নামে গরু কোরবানি করছেন মহেশপুরের কৃষক আবেদ
ঝিনাইদহের সীমান্তবর্তী মহেশপুরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে গরু কোরবানি করবেন উপজেলার মাইলবাড়িয়া ঢাকাপাড়ার মৃত হেকিম উদ্দীন শেখের ছেলে আবেদ আলী শেখ। আগামী ১২ আগস্ট (সোমবার) পবিত্র ঈদুল আজহার দিনে ঈদের নামাজ শেষে প্রধানমন্ত্রীর দীর্ঘায়ু কামনা করে তিনি স্থানীয় এলাকার কোরবানি মাঠে একটি গরু কোরবানি দেবেন বলে ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন। বিষয়টি এলাকায় ব্যাপক আলোচিত হচ্ছে ও সাড়া জাগাচ্ছে।

আবেদ আলী বলেন, তিনি বংশানুক্রমে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে ভালোবাসেন, ভালোবাসেন জননেত্রী শেখ হাসিনাকে। আর এ জন্য তার পরিবারের পক্ষ থেকে দেশবাসীর কল্যাণার্থে তিনি প্রধানমন্ত্রীর দীর্ঘায়ু ও কল্যাণ কামনা করে তার নামে গরু কোরবানি দেয়ার নিয়ত করেছেন। জন্মসূত্রে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে সংশ্লিষ্ট আবেদ আলী তার জীবনে দলীয় কোনো পদ-পদবির আশা করেন না, ভালোবাসেন বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হানিাকে। তিনি একজন সাধারণ কৃষকমাত্র।

আবেদ আলী জানান, তিনি ২০০৮ সালে জননেত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্প থেকে ২০ হাজার টাকা লোন নেন। ১৭ হাজার ১০০ টাকায় একটি গাভি কিনে তখনই মনস্থির করেছিলেন গাভিটি থেকে যদি ৫টি বাছুর হয়, তাহলে গাভিটিকে আল্লাহর রাস্তায় তার প্রিয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে কোরবানি করবেন।

কৃষক আবেদ আলী জানান, গাভিটি লালন-পালন করে এ পর্যন্ত ৫টি বাছুর এবং তাদের প্রজন্ম থেকে বর্তমানে মোট ৯টি গরুর মালিক তিনি। কোরবানির উদ্দেশ্যে লালন করা গাভিটির বাজারমূল্য আনুমানিক ৬ লাখ টাকা বলে তিনি জানান।

আবেদ আলী আরো জানান, সরকারের কাছে তার কোনো চাওয়া-পাওয়ার নেই। বঙ্গবন্ধু সোনার বাংলা গড়ার যে স্বপ্ন দেখেছিলেন, তার যোগ্য উত্তরসূরি শেখ হাসিনা তারই কন্যা হিসেবে যেন তা বাস্তবায়ন করে দেশের মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে পারেন, সুখ-শান্তি দিতে পারেন, এটাই তার কামনা।

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *